পেটের গ্যাস কমানোর উপায় - পেটের গ্যাস কমানোর খাবার

পেটের গ্যাস কমানোর উপায়

বর্তমান সময়ে গ্যাসের সমস্যাটি প্রায় সকলেরই দেখা দিয়েছে আর এই সমস্যাটিতে অধিকাংশ লোকই ভুগছেন। গ্যাসের সমস্যাটিতে যারা ভুগছেন তারাই জানে এটির যন্ত্রণা কেমন। আমাদের এই সমস্যা হওয়ার প্রধান কারণ হলো হোটেল অথবা দাওয়াত এবং পার্টিতে মসলাযুক্ত খাবার খেলে শুরু হয়ে যায়। দাওয়াতে গেলে বিভিন্ন প্রকার মসলাযুক্ত খাবার এর পাশাপাশি অনেক ধরনের ভাজা খাবার ও তেলাক্ত খাবার খাওয়া হয় তাই এই ধরনের সমস্যা বা গ্যাসের সমস্যা হয়।

আরো একটি প্রোষ্ট পডুন: নিজেকে ফিট রাখার কি কি করণীয় - ways-to-keep-yourself-fit






ব্যস্ত জীবন যাত্রার যোগে গ্যাস বা পেটের অসুখ এখন ঘরোয়অ হয়ে দাঁড়িয়েছে আমাদের। আমাদের অনেক সময় পেট ব্যথার পাশাপাশি গ্যাসের চাপ দিয়ে থাকে আর এতে অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে।বর্তমান সময়ে সবার বাড়িতে গেলেই দেখা যায় একটি ট্যাবলেটের পাতা আর গ্যাসের ট্যাবলেট যেটা খেলে ক্ষণিকের জন্য গ্যাস থেকে মুক্ত থাকা যায়। কিন্তু পুরোপুরি গ্যাস সমস্যা দূর করার জন্য গ্যাসের ট্যাবলেট খেলে আমাদের এই সমস্যাটির সমাধান করা সম্ভব হবে না এই সমস্যাটি সমাধান করার জন্য আমাদের কিছু ঘরোয়া এর মাধ্যমে চেষ্টা করে এ সমস্যাটি দূর করতে হবে।

গ্যাস সমস্যা দূর করার জন্য ঘরোয়া কিছু উপায় যেগুলো আমরা প্রয়োগ করলে গ্যাস পেট ব্যথা বুক জ্বালাপোড়া ইত্যাদি থেকে আমরা সহজে বাঁচতে পারব তা হল:

ওষুধ ছাড়াই দূর করুন গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা টি,এই কাজ গুলো করলে আপনি হতে পারবেন গ্যাস সমস্যা সমাধান কারি।

অন্য পোষ্ট পড়তে এখানে ক্লিক করোনঅতিরিক্ত ঘাম কি কি রোগের লক্ষণ জানেন কী?

(১) শসা একটি ঠান্ডা ফল যা গরম দিনে খেলে আমাদের শরীর ঠান্ডা রাখে এবং শসা খেলে পেট ঠান্ডা রাখবে অনেকটাই কার্যকারী হয় শসার ভিতরে রয়েছে ফ্লেভানয়েড এবং অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি যা আমাদের পেটের সমস্যা বা গ্যাস কমাতে সাহায্য করে।

(২) গ্যাস কমানোর আরেকটি উপায় হল দই এর ভিতর এমন একটি উপাদান আছে যা হজম শক্তি বৃদ্ধি করে এবং গ্যাস সমস্যাটি দূর করা সম্ভব হয়নি দই খাবারের মাধ্যমে খুব তাড়াতাড়ি খাবার হজম হয়ে যায় তাতে আর কোন গ্যাসের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় না।

(৩) গ্যাস কমানোর জন্য আদা সবথেকে বেশি কার্যকর উপাদান। আপনাদের পেট ফাপ্পা এবং পেটে গ্যাস হলে আদা কুচি কুচি করে লবণ দিয়ে খান দেখবেন কিছু সময় পরেই সমস্যাটি সমাধান হয়ে যাবে এটি একটি ঘরোয়া পদ্ধতি। এই পদ্ধতি ব্যবহার করে অনেকেই গ্যাস কমানোর সমাধান পেয়েছে।

(৪) হজম শক্তি বৃদ্ধি করার জন্য আরেকটি ভালো উপাদান হলো দারুচিনি। দারুচিনির মাধ্যমে গ্যাস সমস্যা টি বা হজম সমস্যাটি সহজে দূর করা যায় আপনাদেরকে প্রথমে একই গ্লাস পানি তে আধা চামচ দারুচিনির গুঁড়ো দিয়ে পানি ফুটিয়ে নিতে নিতে হবে তারপর দিনে দুই থেকে তিনবার খেলেই যে সমস্যাটি ধীরে ধীরে দূর হয়ে যাবে

সকালে কি খেলে গ্যাস হবে না তা জেনে নিন খুব সহজে।


আমাদের শরীর ভালো রাখতে এবং সুস্থ রাখতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো খাবার। আমরা যদি ঠিকঠাক খাবার না খায় তাহলে আমাদের শরীর পুষ্টি হবে না। পুষ্টিকর খাবার না খেলে সেখান থেকে হতে পারে নানা বিপত্তির। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে আমরা প্রায় সবাই ব্যস্ত সারাদিন ছুটে চলি বিভিন্ন কাজে বিভিন্ন জায়গাতে। ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া হয়না খিদে লাগলে আমরা যা খুশি তাই খেয়ে নিই সেখান থেকে উদ্ভব হয় তা নানাবিধ সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যার কারণে আমাদের অনেক সময় পেট ফাঁপা পেট ব্যথা এবং হজমের সমস্যা দেখা দেয়।

সকালে কি খেলে গ্যাস হবে না আর এই খাবার গুলো খেতে হবে হবে।


(১) আপনি ঘুম থেকে খুব সকালে উঠে তরমুজ খেতে পারেন। তরমুজের ভিতর প্রায় 90 শতাংশ জল দিয়ে গঠিত এটি খাওয়ার ফলে শরীর পানি ঘাটতি পূরন হয়ে যাবে।

(২) নিয়মিত কুসুম পানি পান করলে আমাদের শরীরে ছড়িয়ে থাকা বিষাক্ত পদার্থগুলো বেরিয়ে আসবে।

(৩) রক্ত চলাচল নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে গরম পানি।

(৪) আমরা সকালে গরম পানি পান করলে আমাদের শরীরে অতিরিক্ত চর্বি কমে যায় এছাড়াও আমাদের শরীরের বাড়তি ওজন ঝরতে থাকে যা আমাদের শরীলের ওজন কমাতে অনেকটা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়,প্রতিদিন গরম পানি পান করায় ওজন কমানো সহজ হয়ে দাড়ায়।

(৫) আপনাদের যদি মাথাব্যথা সমস্যা থাকে তাহলে গরম পানি পান করতে পারেন। গরম পানি পান করার ফলে আপনার মাথাব্যথা সমস্যাটি দূর হয়ে যাবে আর গরম পানি পান করার মাধ্যমে গলায় যদি কোন সমস্যা থাকে বা গলায় যদি ব্যাথার থাকে বা গলা শুকিয়ে আসলে এমনি গরম পানি পান করলে আপনার সমস্যাটি একেবারে দূর হয়ে যাবে।
গ্যাস্ট্রিকের ব্যথার লক্ষণ

আমাদের পেটের ওপর দিকে সব সময় বা সারাদিন অল্প অল্প ব্যথা থেকে শুরু করে হঠাৎ করে বেশি ব্যথা হয়। এই ব্যথাটি সাধারন লোক জানে গ্যাস্ট্রিক আলসারের ব্যথা। এই ব্যথাটি আমাদের অনেক ক্ষতি করে এই ব্যথা হওয়ার কারণে আমরা ঠিকমত খেতে পারেনা ঠিকমত ঘুমাতে পারি না ঠিকমত খাবার খেতে পারি না কোন কিছুই আমাদের ভালো লাগেনা।

পেটের ওপরে সর্বোপরি বিভাগে ব্যথা পা জ্বালাপোড়া হয় খাবার পর পর ব্যথা বাড়ে এবং ঠিক মত খাওয়া যায় না খালি পেটে অনেকটা ব্যথা করে বদ হজহম হয় এবং বমি বমি ভাব হয় বিভিন্ন প্রকার গ্যাস হতে ভিতর থেকে ভের হয় ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যাটি দেখা দিলে বুঝতে হবে আপনার গ্যাস্ট্রিকের ব্যথার লক্ষণ আছে।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url